ঢাকা   ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

হালুয়াঘাটে যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে মারধর,থানায় অভিযোগ

Logo Missing
প্রকাশিত: 06:16:26 pm, 2021-06-28 |  দেখা হয়েছে: 1 বার।

::স্টাফ রিপোর্টার::ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে যৌতুকের জন্য জামিলা খাতুন (৩২) নামে এক গৃহবধূকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

পাষান্ড স্বামী গৃহবধূকে এলাপাথারী ভাবে মারপিট ও কিলঘুষি মারায় শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম হয়। উপজেলার দক্ষিণ কালাপাগলা এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

রবিবার (২৭ জুন) রাত্রে ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে তার স্বামী মাহফুজ করিমকে প্রধান আসামী করে আরও ২ জনের নামে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন। আহত গৃহবধূ উপজেলার দক্ষিণ কালাপাগলা এলাকার হরমুজ আলীর মেয়ে।অভিযুক্তরা হলেন,উপজেলার দক্ষিণ কালাপাগলা আব্দুল কাদিরের ছেলে এবং ভুক্তভোগীর স্বামী মাহফুজ করিম (৪০),শাশুড়ি মাহমুদা (৬০) শশুর আব্দুল কাদির সর্ব সাং- উপজেলার দক্ষিণ কালাপাগলা 

এলাকার।অভিযোগ সূত্রে ও ভুক্তভোগী জামিলা খাতুন জানায়, ১৪ বছর আগে রেজিষ্টা কাবিন মূলে বিবাহ হয়। এই সংসার জীবনে ৩টি ছেলে সন্তান রয়েছে। সংসারের কোন কাজকর্ম না করিয়া স্বামী মাহফুজ করিম প্রায় সময় নেশা করাসহ জুয়া খেলে আমি তাকে সাংসারিক কাজের কথা বললে আমাকে অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করাসহ মারপিট করে।আমি সন্তানদের সুখের দিকে তাকাইয়া এই অত্যচার নির্যাতন সহ্য করছি। 

এরই মধ্যে গত ১৮ জুন সকাল ৮টার দিকে মাহফুজ করিম বাড়ির ভিতর উঠানে সাংসারিক বিষয় নিয়া কথা কাটাকাটি নিয়া শশুর ও শাশুড়ি প্ররোচনায় আমাকে যৌতুকের জন্য ১,০০,০০০(এক লক্ষ) টাকা আনিতে বলে আমি না যাওয়ায় উত্তেজিত হইয়া আমাকে এলাপাথারী ভাবে মারপিট ও কিলঘুষি মারায় শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম করে।মারপিট করার পর আমার কোন চিকিৎসা না করিয়া আমাকে ও সন্তান ৩টি সহ তাহাদের বাড়ী থেকে তাড়াইয়া দেয়।আমি নিরুপায় হইয়া আমার সন্তান ৩টি নিয়া পিতার বাড়ীতে যাইয়া স্থানীয় ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিই এখন পযান্ত আমি পিতার বাড়ীতে আছি।

ঘটনার বিষয়ে বিবাদী মাহফুজ করিমের কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে, তিনি বলেন আমি আমার স্ত্রীকে কোন মারপিট করি নাই।এই বিষয়টা মিথ্যা এবং বানোয়াট।এবিষয়ে হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান বলেন, এ ঘটনায় একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!