ঢাকা   রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

হালুয়াঘাটে খাল দখলের অভিযোগ

Logo Missing
প্রকাশিত: 06:16:40 pm, 2021-01-26 |  দেখা হয়েছে: 6 বার।

মুহাম্মদ মাসুদ রানা, হালুয়াঘাটঃ ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে স্থানীয় প্রবাভশালী লোকজন অভৈধভাবে হালুয়াঘাট উপজেলার বিভিন্ন নদী ও খাল দখল করে স্বাভাবিক পানি প্রবাহকে বাধাগ্রস্থ করায় বর্ষা মৌসুমে বন্যাসহ জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এর মাঝে দর্শা নদীসহ সীমান্তবর্তী নদী ও খালগুলো অন্যতম। তার-ই ধারাবাহিকতা কৈচাপুর ইউনিয়নের কড়ইকান্দা গ্রামের গীর্জা সংলগ্ন একটি সরকারী খাল দখলের অভিযোগ রয়েছে। সরেজমিনে দেখা যায়, বর্ষা মৌসুমে প্রায় পাঁচটি গ্রামের আবাদকৃত ভূমিতে পতিত স্বাভাবিক বৃষ্টির পানি ও উজান থাকা থেকে নেমে আসা পানি প্রবাহের একমাত্র খালটি প্রভাবশালীদের দখলে থাকায় প্রায় কয়েকশত একর জমির ফসল জলাবদ্ধতায় নষ্ট হয়। এছাড়া খালটি প্রভাবশালীদের দখলে জানিয়ে ভূক্তভোগী মোঃ এখলাছ উদ্দিন বলেন, দীর্ঘদিন যাবত আমরা রাস্তা ও পানি নিষ্কাশনের একমাত্র খালটি নিয়ে খুব কষ্টে আছি। কিছু স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি তাদের নিজেদের স্বার্থে খাল দখলের উদ্দেশ্যে মাটি দিয়ে স্বাভাবিক পানি প্রবাহ বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে পানি নামতে পারে না। এতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে দুর্ভোগ তৈরি হয়; নিমজ্জিত হয় জমির ফসল। তাই এই খালটি দখলমুক্ত হলেই আমাদের কষ্ট লাগব হবে। এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা তুলা মিয়া বলেন, সরকারি নকশা অনুযায়ী রাস্তা ও খালটি সংস্কারের জন্য আমরা ইতোমধ্যে কৈচাপুর ইউপি চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানকে অবহিত করেছি। এ বিষয়ে কৈচাপুর ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদ আহমেদ সারোয়ার জাহান জাহাঙ্গীর বলেন, বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি। উর্ধতন কতৃপক্ষকে অবগত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবো। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রেজাউল করিম বলেন, কৈচাপুর ইউনিয়নের কড়ইকান্দার একটি রাস্তার সমস্যার বিষয়ে আমি অবগত হয়েছি। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদুল হক সায়েম বিষয়টি নিয়ে বসেছিলেন। উপজেলা ও ইউনিয়নের সকল খাল পর্যায়েক্রমে খনন ও দখল মুক্ত করার জন্য যত দ্রুত সম্ভব উদ্যোগ গ্রহন করা হবে। তিনি আরও বলেন, আজ নদী রক্ষা কমিটির সভা হয়েছে। উপজেলার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দর্শা নদী ৫৬ কিলোমিটার খননকার্যসহ প্রায় চারটি নদী ও খাল খনন ও দখল মুক্ত করার কাজ শীঘ্রই শুরু হবে।