ঢাকা   মঙ্গলবার ২৬ মে ২০২০ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

হালুয়াঘাটে বোরো ধানের বাম্পার ফলন হালুয়াঘাট থেকে মুহাঃ মাসুদ রানাঃ- হালুয়াঘাটে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ধান কাটছে কৃষক । এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন হলেও করোনা ভাইরাসের প্রভাবে কৃষক সমাজ কিছুটা শঙ্কিত। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, হালুয়াঘাটে এ বছর ২০১৭০ হেক্টর জমিতে আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ শুরু করে এবং তার মাঝে মোট ১৯৫১৮ হেক্টর জমিতে এবার বোরো চাষ হয়েছে, যা লক্ষ্য মাত্রার একেবারে নিকটবর্তী অবস্থানে। সেই সাথে প্রায় ১০,০০০ হেক্টর জমির ফসল কাটা সম্পন্ন হয়েছে। সরেজমিন উপজেলার কৈচাপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শনে দেখা যায় কৃষকরা ধান কাটা, মাড়াই ও খড় শুকানো শুরু করেছেন। উপজেলার জুগলি ইউনিয়নের কালাপাগলা এলাকার কৃষক ছাইদুল ইসলাম (৩৫) জানান, এবার তিনি প্রায় এক একর জমিতে বোরো ধানের আবাদ করেছেন। ফলনও ভালো হয়েছে। ধানের বাজার দরও ভালো পাচ্ছি। নড়াইল ইউনিয়নের আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, বিগত বছরগুলোতে অনেক শ্রমিক হালুয়াঘাটে আসতো। তবে এবার করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে গণপরিবহন বন্ধ থাকায় শ্রমিক আসতে পারছে না। তাই আমরা নিজে এবং কমবাইন্ড হারভেস্টারের মাধ্যমে ধান কাটছি এবং আমাদের এলাকায় প্রায় তিন ভাগ মাড়াই শেষ হয়েছে। তাছাড়াও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে দরিদ্র কৃষকদের ধান কেটে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। ধান ব্যবসায়ী বিশ্বনাথ সাহা বলেন, ২৮ জাতের ধান প্রতি মন ৭০০ থেকে ৭৫০ টাকা এবং মোটা জাতের ধান ৭০০ থেকে ৭১০ টাকা মন কৃষকদের নিকট থেকে ক্রয় করছি। প্রধানমন্ত্রী ৫ ভাগ সুদে কৃষকদের প্রণোদনা দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। প্রান্তিক কৃষকরা যাতে সঠিক ভাবে প্রণোদনা পায় এবং সেই সাথে ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট ভেঙ্গে প্রকৃত কৃষকরা যাতে উপযুক্ত মূল্যে কোন প্রকার হয়রানী ছাড়া সরকারের নিকট ধান বিক্রি করতে পারে সে ব্যবস্থা কৃষকরা দাবি জানান। হালুয়াঘাট উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ মাসুদুর রহমান বলেন, শেষ পর্যন্ত আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ফলন গত বছরের চেয়ে ভাল হবে। হালুয়াঘাটে ০৭ টি কমবাইন্ড হারভেস্টারের মাঝে ০৪ টি বিতরণ করা হয়েছে বাকি ০৩ টি সংশ্লিষ্ট কোম্পানি সরবরাহ করতে পাচ্ছে না এবং ০৮ টি রিপার মেশিনের মাঝে ০৩ টি বিতরণ করা হয়েছে, অবশিষ্ট ০৪ টি পরে রয়েছে। এবার ৮১,৯৭৫ মেট্রিকটন চাল উৎপাদনের সম্ভাবনা রয়েছে।  জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোঃ রেজাউল করিম ডেইলি মিডিয়াককে বলেন, সরকারিভাবে ধান ক্রয়ের লক্ষ্যে প্রকৃত কৃষকদের যাচাই-বাচাই করে উন্মুক্ত লটারির মাধ্যমে নির্বাচিতদের থেকে ধান ক্রয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এবার ২৬ টাকা কেজি দরে (১০৪০/- মন) মোট ৩৪২০ মেট্রিকটন ধান ক্রয় করা হবে। তিনি আরো বলেন, ধান চাষ ব্যতিত যে সকল ভূমি পতিত থাকে তা পতিত না রেখে আবাদের আওতায় আনার জন্য সরকার বিনা মূল্যে বিভিন্ন ধরনের সবজি বীজ বিতরণ করছে।

Logo Missing
প্রকাশিত: 09:02:52 pm, 2020-05-16 |  দেখা হয়েছে: 8 বার।

Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!