ঢাকা   বৃহস্পতিবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২০ | ৮ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

জমি ও পেনশনের টাকা বাটোয়ারা নিয়ে বিরোধ ॥ শেরপুরে বাবার হাতে ছেলে খুন

Logo Missing
প্রকাশিত: 08:41:16 pm, 2019-08-24 |  দেখা হয়েছে: 89 বার।

শেরপুর প্রতিনিধি : শেরপুরে জমি ও পেনশনের টাকা নিয়ে বিরোধের জেরে সাবেক কারারক্ষী মোসলেম উদ্দিন ওরফে শিয়াল (৬৫) নামে এক বাবা তাঁর ছেলে শফিকুল ইসলামকে (৩৫) দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে। ঘাতক শেরপুর সদর উপজেলার চরমোচারিয়া ইউনিয়নের মাছপাড়া গ্রামের নয়মুদ্দিন মন্ডলের ছেলে। শনিবার (২৪ আগষ্ট) সকালে এ ঘটনা ঘটে।
খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ঘাতককে গ্রেফতার করে। পরে হত্যায় ব্যবহৃত দা উদ্ধার করা হয়। দুপুরে পুত্র হন্তারক মোসলেমকে হত্যার ঘটনাস্থল মাছপাড়া পাটক্ষেতে নিয়ে যাওয়া হলে পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম ও শত শত গ্রামবাসীর সামনে সে হত্যার দায় স্বীকার করে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সাবেক কারারক্ষী মোসলেম উদ্দিন ওরফে শিয়াল তিন বিয়ে করেছে। তার বড় ছেলে নিহত শফিকুল ইসলামও দুই বিয়ে করেছে। ৪ একর আবাদী জমি ও পেনশনের টাকা ভাগবাটোয়ারা নিয়ে অনেকদিন ধরে বাবা ছেলের সাথে বিবাদ চলছিল। এনিয়ে একাধিকবার দু’জন দ্বন্দ্ব সংঘাতে জড়ায়। ঘটনার দিন সকাল ৯টার দিকে ছেলে ধানক্ষেতে আমন ধানের চারা রোপন করছিল। পাশেই পাট ক্ষেতে পাট কাটছিল বাবা মোসলেম উদ্দিন।
এসময় ছেলে বাবার কাছে দুই একর জমি দাবী করে এবং পেনশনের টাকার ভাগ চায়। বাবা ছেলে এনিয়ে তর্ক-বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে বাবা উত্তেজিত হয়ে হাতে থাকা দা নিয়ে ছেলের কাছে আসে। এসময় ছেলেও বাবাকে দেখে নেওয়ার জন্য হুমকি দিলে উত্তেজিত হয়ে মোসলেম উদ্দিন ছেলের ঘারে দা দিয়ে কোপ দেয়। প্রথম কোপে ছেলে মাটিয়ে লুটিয়ে পড়ে। ফের কোপ দিলে তা গলায় লেগে ঘটনাস্থলেই মারা যায় ছেলে শফিকুল। খবর পেয়ে শফিকুলের লোকজন লাঠি-সোঠা হাতে ঘটনাস্থলে এলে পালিয়ে যায় মোসলেম উদ্দিন।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে শেরপুরের পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম বলেন,  ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক এবং মর্মান্তিক। আমাদের সমাজে মূল্যবোধের অবক্ষয়  চলছে এ হত্যাকান্ড তার প্রমাণ। সামান্য অর্থ ও বিত্তের জন্য বাবা ছেলেকে ছাড় দিচ্ছে না। ছেলে বাবাকে ছাড় দিচ্ছে না। অর্থ ও স্বার্থের  জন্য আমরা নীতি নৈতিকতা সব ভুলতে বসেছি।
এ ঘটনায় নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পরিবার মামলা দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা ।