ঢাকা   রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

জাকির নায়েককে প্রকাশ্য বক্তৃতা দিতে মালয়শিয়া পুলিশের নিষেধাজ্ঞা

Logo Missing
প্রকাশিত: 12:45:34 pm, 2019-08-21 |  দেখা হয়েছে: 2 বার।

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

মালয়েশিয়ায় হিন্দু এবং চিনা সম্প্রদায়দের নিয়ে স্পর্শকাতর মন্তব্য করেন বিতর্কিত ভারতীয় ইসলামী প্রচারক জাকির নায়েক৷ পরে অবশ্য তার জন্য ক্ষমাও চান । তবে ইতিমধ্যেই মালয়েশিয়া থেকে জাকির নায়েককে বহিষ্কারের দাবি উঠেছে। ২০১৬ সালে ভারতে তার বিরুদ্ধে জঙ্গিদের উস্কানি দেওয়া এবং অর্থ পাচারের অভিযোগ ওঠায় তিনি মালয়েশিয়ায় আশ্রয় নেন। সেখানে তাকে স্থায়ীভাবে থাকার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

এর আগেও জাকির নায়েক বেশ কয়েকবার তার মন্তব্য ঘিরে বিতর্ক ছড়িয়েছিল ৷ যুক্তরাষ্ট্রে ১১ ই সেপ্টেম্বরের সন্ত্রাসী হামলাকে তিনি ‘নিজেদের কাজ’ (ইনসাইডার জব) বলে বর্ণনা করেছিলেন। তবে এবারে জাকির নায়েকের ওই বিতর্কিত মন্তব্যটিতে বলেন, মালয়েশিয়ার হিন্দুরা ভারতের সংখ্যালঘু মুসলিমদের চেয়ে একশো গুন বেশি অধিকার ভোগ করে। তার এই মন্তব্য ঘিরে মালয়েশিয়ায় তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়।তাকে মালয়েশিয়া থেকে বের করে দেওয়ার আগে সেখান থেকে চিনাদের বের করে দেওয়া উচিৎ বলেও তিনি মন্তব্য করেন বলেও অভিযোগ করা হচ্ছে। বিতর্কিত এই মন্তব্যের পর পুলিশ এ বিষয়ে তাকে গত সোমবার দশ ঘন্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করে।

 

তবে মঙ্গলবার দেওয়া এক বিবৃতিতে জাকির নায়েক দাবি করেন, তার কথাকে অপ্রাসঙ্গিকভাবে উদ্ধৃত করা হচ্ছে এবং বিকৃত করা হচ্ছে। তিনি দাবি করছেন, কোন ব্যক্তি বা সম্প্রদায়কে আঘাত করা তার উদ্দেশ্য ছিল না। মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ জানিয়েছেন, জাকির নায়েক তার সীমা লঙ্ঘন করেছেন এবং কয়েকজন মন্ত্রী তাঁকে মালয়েশিয়া থেকে বহিষ্কার করার দাবি তোলেন।

পরিস্থিতি এতটাই জটিল যে মালয়েশিয়ার সরকারী বার্তা সংস্থা বার্নামা জানিয়েছে, সেখানে কোন প্রকাশ্য সভায় তার বক্তৃতা দেওয়া নিষিদ্ধ করেছে মালয়শিয়ার পুলিশ।

প্রসঙ্গত, মালয়েশিয়ার মোট জনসংখ্যার ৬০ শতাংশ মুসলিম। তবে সেখানে ভারতীয় এবং চিনের বংশোদ্ভূত মানুষও রয়েছে।

সুত্র/সময়ের কণ্ঠস্বর,