ঢাকা   শনিবার ২৪ অগাস্ট ২০১৯ | ৯ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

কক্সবাজার-টকেনাফ মহাসড়কে থাইংখালী (পালংখালী) এলাকায় রাস্তার বহোল অবস্থা:

Logo Missing
প্রকাশিত: 06:45:28 pm, 2019-07-09 |  দেখা হয়েছে: 14 বার।

উখয়িা: কক্সবাজার :  গত এক সপ্তাহ ধরে কক্সবাজার এলাকায় হচ্ছে টানা বৃস্টি মাঝে মাঝে বৃষ্টি বন্ধ হলওে এর স্থায়ীত্ব খুবই কম।এর মাঝওে মানুষরে জীবকিা নর্বিাহরে জন্য অফবি বা ব্যাবসার কাজে বরে হতে হয় প্রতনিয়িত।বশিষে করে রােহঙ্গিা ক্যাম্পে যাওয়া এনজওি সংস্থার র্কমীদরে পোহাতে হচ্ছে যানযটরে র্দীঘ অপক্ষো। গত কদনি ধরে সবচাইতে বশেি কস্ট পোহাতে হচ্ছে রাস্তার বহোল অবস্থার কারন।ে কারন কক্সবাজার থকেে টকেনাফ যাওয়ার রাস্তাটি ছোট ছোট খানা খন্দ এখন ছোট ছোট নালা/ডোবায় পরণিত হয়ছে।ে যার কারনে থমেে থমেে চলছে গাড়ি কোথাও কোথাও আবার গাড়ি বকিল হওয়ায় বন্ধ হয়ে যাচ্ছে চলাচল। বকিল্প রাস্তা অল-গলরি খোজে  আবারো যানযটরে র্দীঘ সারি দখো যায়।
 উখয়িা র্কোটবাজার সংলগ্ন রাস্তাটি বশে কয়কেবার মরোমত করা হলওে এর থকেে সুরাহ হওয়া যায়নি কারন রাস্তাটি যে শাক দয়িে মাছ ঢাকার ন্যায়।শুধু তাই নয় উখয়িা বাজার ও ব্রীজ এর অবস্থা খ্বুই খারাপ। কুতুপালং, বালুখালী, বশিষে করে থাইংখালী(পালংখালী) এই রাস্তাটরি কারণে র্দীঘক্ষন অপক্ষো করতইে হব।ে থাইংখালী বাাজরে যাওয়ার আগে রাস্তাটতিে প্রাই দনিই হচ্ছে ছোট ছোট র্দুঘটনা, উল্টে যাচ্ছে ইজবিাইক, পকিআপ ও সএিনজি সহ অটো রক্সিা।রাস্তার বহোল দশার কারনে তীব্র যানযট হওয়ায় কউে কউে হটেইে যাচ্ছনে নজিস্ব গন্তব্য।ে
  এক সময় কক্সবাজার টকেনাফ রাস্তাটি ছলি খ্বুই সুন্দর কারণ রোহঙ্গিা শরর্নাথী আসার আগেে এই রাস্তাটি দয়িে ভ্রমণ পপিাসু মানুষ সইেন্টর্মাটনিে যাওয়া আসা করত তাতে সময়ও খুব লাগত। র্বতমানে সময়রে কোন ব্যাক্ষা পাওয়া যাবনো। তাহলে কি রোহঙ্গিা আসার কারনে যাতায়াত বশেি হয়ছেে এবং এনজওি সংস্থা এর জন্য দায়ী? প্রশ্ন উঠতইে পার।ে
বশে কছিুদনি আগে থকেইে রাস্তাটরি মরোমতরে কাজ চললওে এখনো শষে হয়নি এর মরোমত। যখোনে যখোনে র্গত গত বছর হয়ছেলি সসেকল জায়গাতে এবার আরো বশেি খানা খন্দ ভরে গছেে তাহলে এক বছরে কি কাজ হয়ছেে এই রাস্তায় এটাও একটা প্রশ্ন। যে পরমিানে গাড়ি চলাচল করে এই রাস্তাটতিে তাতে করে রাস্তাটি আরোও মজবুত করে বাধা ছাড়া বকিল্প কছিু নইে। বড় বড় মালবাহী ট্রাক বশিষে করে ইট, বালূ, সমিন্টে ও শল্টোর নর্মিানরে জন্য নয়িে যাওয়া বাঁশরে গাড়গিুলোর লোড একই রাস্তাটরি উপরে চলাচলরে কারণে ভঙ্গেে যাবে এটাই স্বাভাবকি।
এবার আসা যাক সইে সকল এনজওি সংস্থাদরে উদ্দশ্যেে কছিু বলাযাক: রোহঙ্গিা শরর্নাথীদরে জন্য কাজ করতে এসে নজিরো ঠকিই ফায়দা নলিওে স্থানীয় মানুষরে শুধু সক্রেফিাইস করা ছাড়া কি আর কছিু পাওয়ার নইে? রোহঙ্গিাদরে জন্য নজিদেরে বাড়-িভটিা সহ অনকে সম্পত্ত্বি দওেয়া এলাকাবাসীদরে কি কছিুই পাওয়ার নইে? নাই বা থাকুক প্রশ্নমতে এনজওি সংস্থা ক্যাম্পে চলাচলরে জন্য পাহাড়ে ও পাহাড়রে নচিে কোটি কোটি টাকা ব্যায় করছে শুধু রাস্তার কাজে তাহলে যইে রাস্তাটি দয়িে আপনারা চলনে ও উর্পাজন করনে সইে রাস্তাটি নর্মিানরে জন্য কি কোন ফান্ড নইে আপনাদরে হাত?ে আসলে আমাদরে এই দশেটা উন্নতি শুধু বইয়রে পৃষ্ঠা র্পযন্তই বহাল থাকে বাস্তবে এর রুপ কবে দখো যাবে তা কে জান।ে
 স্থানীয় প্রশাসনরে সাথে কথা বলে এনজওি সংস্থা ও সরকাররে সড়ক পথরে ব্যায়রে র্অথ সমন্বয় করে জরুরী ভত্তিতিে মরোমত করা গলেে অন্তত মানুষরে চলাচল কষ্ট একটু লাঘব হবে বলে মনে করনে অনকেইে।